১০ টি বেস্ট কানাডার দর্শনীয় স্থান ও পর্যটন এলাকা

কানাডার দর্শনীয় স্থান

হ্যালো বন্ধুরা, আশা করি সবাই ভালো আছেন। আপনি যেহুতু আমাদের কানাডার দর্শনীয় স্থান পোস্টটিতে কিল্ক করেছেন। এর মানে আপনি কানাডার দর্শনীয় স্থান সর্ম্পকে জানতে আগ্রহি। চিন্তার কোনো কারণ নেই, আজকের এই আর্টিকেল এ আমরা কানাডার দর্শনীয় স্থান সর্ম্পকে পুরোপুরি জানার চেষ্টা করব। তবে চলুন শুরু করা যাক।

কানাডা (Canada) উত্তর আমেরিকার উত্তরাংশে গড়ে ওঠা একটি রাষ্ট্র। আয়তনের বিচারে কানাডা বিশ্বের ২য় বৃহত্তম রাষ্ট্র । কিন্তু জনসংখ্যায় এর অবস্থান হল ৩৮তম । সাধারণত কানাডার জলবায়ুতে গ্রীষ্মকালে হালকা ঠান্ডা, ভিজা কুয়াশা, শীতকালে অনেক ঠান্ডা, বরফাচ্ছন্ন, এবং অনেক তুষারপাত হয়ে থাকে থাকে। দেশটির সৌন্দর্যর জন্য প্রতি বছর প্রায় লক্ষ লক্ষ পর্যটক এখানে বেড়াতে আসেন। আজকে আমি আপনাদের এই Article সেরা ১০ টি সেরা কানাডার দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে জানাবো । যেগুলো হয়ত আপনাদের অনেকের কাছেই অজানা। তবে চলুন শুরু করা যাক


ভিক্টোরিয়াঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

কানাডার ব্যানফ শহর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দিক দিয়ে এটি একটি অতুলনীয় স্থান। ব্যানফ কানাডার দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে একটি। ব্যানফ শহরের চারপাশে মেঘের মতো পর্বতমালার দ্বারা আবৃত। এখানে প্রাকৃতিক জলারস, রিসোর্ট, পর্বতীয় ঝর্ণা,জাদুঘর, ন্যাশনাল পার্ক, লেক, বনানী সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক আকর্ষণ রয়েছে। ব্যানফের শহরের মাধ্য দ্বীপ, হর্ট জার্জ সবচেয়ে জনপ্রিয় স্থানগুলির একটা। সবমিলে ব্যানফ স্থানটি দর্শনার্থীদের অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে


ভ্যানকুভারঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

ভ্যানকুভার শহর কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিম প্রদেশে অবস্থিত একটি সৌন্দর্যপূর্ণ শহর । ভ্যানকুভার শহর এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ভ্রমণকারীদের জন্য একটি উপযোগী স্থান।ভ্যানকুভারের চারপাশে অনেকগুলি পার্ক রয়েছে, যেগুলিতে পিকনিক বা পানির কাছে সময় কাটাতে অত্যন্ত সহায়তা করে। এখানে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংস্থা, মিউজিয়াম, কালা ও সংস্কৃতির কেন্দ্র, মন্দির এবং প্রাচীন স্থাপনাগুলি রয়েছে। এছাড়াও ভ্যানকুভারের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক উদ্যান ও মুভি স্টাডিওগুলি দেখা যায়, যা নৃত্য-সংগীতের প্রেমিকদের জন্য আকর্ষণীয়। বর্তমানে ভ্যানকুভারে কানাডার সর্ববৃহৎ বন্দরটি অবস্থিত।

See also  ৮ টি বেস্ট চীনের দর্শনীয় স্থান ২০২৩

Also read –


অটোয়াঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

আটোয়া শহরটি কানাডার অন্টারিও প্রদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে কেবেক প্রদেশের সাথে সীমানাতে, গাতিনো নদী, রিদো নদী ও অটোয়া নদী তিনটির সঙ্গমস্থলে অবস্থিত। অটোয়ার নদীর তীরে একটি মনোরম জাদুঘর রয়েছে। জাদুঘরটি আটোয়া শহরের কেন্দ্রস্থল থেকে 5 মিনিটের হাঁটার পরই পাওয়া যায়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে কানাডার ব্যবহৃত অস্ত্র ও যানবাহন এখানে প্রদর্শন করা হয়েছে। অটোয়া কানাডার বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন গাড়ি মডেল বিক্রয় করা হয়ে থাকে, যেগুলো বিশ্বে অনেক বড় ব্র্যান্ডস হিসেবে পরিচিতি লাভ পেয়েছে। এর মধ্যে কিছু জনপ্রিয় ব্র্যান্ড হলো ক্রাইসলার, ফোর্ড, টয়োটা, হন্ডা এবং জিএমসি।


কানাডা ন্যাশনাল পার্কঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

কানাডা ন্যাশনাল পার্ক হলো কানাডার একটি বিশাল সংরক্ষিত এলাকা, যা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, উন্নয়নশীলতায় ভরপুর। এই পার্কগুলি মানবজাতির প্রাকৃতিক ও ঐতিহ্যবাহী সম্পদ সংরক্ষণ করার জন্য গঠিত করা হয়েছে। কানাডা ন্যাশনাল পার্কগুলির মধ্যে বিশাল হিসেবে উল্লেখযোগ্য পার্কগুলি হল জাসপার ন্যাশনাল পার্ক, ব্যানফ ন্যাশনাল পার্ক, গ্রোস মর্ন ন্যাশনাল পার্ক, প্রিন্স এডোয়ার্ড আইল্যান্ড ন্যাশনাল পার্ক, কেপ ব্রেটন আইল্যান্ড ন্যাশনাল পার্ক ইত্যাদি।

ন্যাশনাল পার্কস কানাডা এই এলাকাগুলিকে রক্ষা করার জন্য এবং দর্শকদের উপভোগ করার জন্য সবচেয়ে সুন্দরতম স্থান গুলোর মধ্যে একটা। এই এলাকাগুলিকে দেখার জন্য প্রায় লক্ষ্যাধিক পর্যটন এখানে ঘুরতে আসেন। এটি কানাডার দর্শনীয় স্থান গুলোর মধ্যে অন্যতম


ব্যানফঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

কানাডার ব্যানফ শহরটি একটি অসাধারণ জায়গা, যা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য পর্যটকদের নজর কেড়েছে । ব্যানফ শহরটি নয়টি পর্বতস্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। সাধারণত, ব্যানফ = কানাডার একটি ছোট শহর, এখানে বিভিন্ন ধরনের নীলগিরি ও স্বর্ণকেন্দ্রিক স্কি রিসোর্ট রয়েছে যা এখানে ভীষণ ভাবে পরিচিত লাভ করেছে। ব্যানফে একটি মাহবুব পর্যটন স্পট রয়েছে, যেখানে আপনি পর্বতীয় দৃশ্য ও স্বর্ণস্পর্শ দেখতে পাবেন। যার জন্য এখানে পর্যটকদের ভীড় লেগেই থাকে। সব মিলিয়ে এটি কানাডার দর্শনীয় স্থান বলা হয়। কানাডা বিশ্ববিখ্যাত একটি পর্বত দেশ এবং ব্যানফ তার মধ্যে একটি অন্যতম পর্বত পর্বত সফর। এখানে আপনি স্কি সহ আরও অনেক কিছু উপভোগ করতে পারেন। ব্যানফ এ থাকা বিভিন্ন হোটেল, কেবিন এবং অভ্যন্তরীণ কেম্পিং স্পট থেকে আপনি আপনার পছন্দমত ভিন্ন ভিন্ন জায়গার যাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

See also  ১০ টি বেস্ট জাপানের দর্শনীয় স্থান এবং ভ্রমণ গাইড 2023


আরও পড়ুনঃ ৮ টি বেস্ট চীনের দর্শনীয় স্থান ২০২৩


মন্ট্রিয়লঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

মন্ট্রিয়লকে বলা হয় কানাডার সেকেন্ড লার্জেস্ট শহর । এবং কানাডার প্রধান শহর ও বটে। এটি কানাডার কেবলমাত্র ফরেস্ট সিটি হওয়ার কারণে প্রাকৃতিক দর্শনীয় জায়গার দিক থেকে মন্ট্রিয়ল অন্যতম। মন্ট্রিয়ল প্রধানত ফরেস্ট সিটি হওয়ায় এখানে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনেক বেশি দেখা যায়। ফার্মার্স মার্কেট, মন্ট্রিয়ল মিউজিয়াম, ওল্ড পোর্ট, নোট্র ডেম ও মাউন্ট রয়াল পার্ক মন্ত্রিয়ল এর দর্শনীয় স্থান যা সবসময় পর্যটকদের আকর্ষণ করে থাকে। এছাড়াও মন্ট্রিয়ল এ থাকা বিভিন্ন রেস্তোরাঁ, ক্যাফে এবং পাবলিক স্পেস প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও স্থানীয় খাদ্যের মধ্যে থাকা অনুভব পর্যটকদের ভালবাসা দেয়। মন্ট্রিয়ল কানাডাতে সবসময় মনময় পরিবেশ তৈরি করে থাকে। কেউ যদি কানাডাতে প্রথমবার যান, তবে একবার হলেও এখানে ভ্রমণ করবেন।


লেক লুইসঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

লেক লুইস কানাডার একটি সুন্দর,প্রাকৃতিকময় এবং পর্যটন নগরী । এটি কানাডার ব্রিটিশ কোলাম্বিয়া প্রদেশে অবস্থিত হয়। লেক লুইস এর প্রাকৃতিকময় দৃশ্যগুলো অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং উপযোগী । ভ্রমণপ্রিয় মানুষদের জন্য জন্য একটি সুন্দরতম স্থান হয়ে উঠেছে। আপনি যদি এখানে শীতকালে যান তবে আপনি লেক লুইস স্কি রিসোর্টে স্কি বা স্নোবোর্ড করতে পারেন যা ‍দিন দিন এখানে জনপ্রিয় হয়ে যাচ্ছে।

কানাডার মধ্যে লেক লুইস কে একটি সুন্দর জায়গা হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে কারণ এটি একটি অনেক নিরাপদ এবং পরিষ্কার পরিবেশ প্রদান করে থাকে এবং এখানে আপনি এখানে অনেক নিরাপদ ভাবে ভ্রমণ করতে পারবেন। এখানে আপনি স্বচ্ছ নীরব জলপাই দেখতে পাবেন এবং এটি আপনার মনকে একদম শান্ত করে তুলবে। । আপনি এখানে অপরিসীম প্রাকৃতিক পরিবেশে ঘুরতে পারবেন এবং সুসজ্জিত বাসস্থানে অনায়েসে থাকতে পারবেন। এখানে রাতে দীপদর্শন, সালমন রান ও অনেক প্রজাতির প্রাণী দেখা যায়। । লেক লুইসে একটি পরিবেশগত বিজ্ঞান কেন্দ্র রয়েছে যেখানে আপনি প্রাকৃতিক বিজ্ঞান সম্পর্কে জানতে পারবেন।

See also  স্পেনের ১০ টি সেরা দর্শনীয় স্থান সমূহ


টরন্টোঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

টরন্টো উত্তর আমেরিকা মহাদেশের রাষ্ট্র কানাডার দক্ষিণ-পূর্ব অংশে অবস্থিত অন্টারিও প্রদেশের রাজধানী শহর। এটি কানাডার সবচেয়ে বৃহত্তম শহর এবং মানসম্পন্ন সংস্কৃতি এবং বিনোদন কেন্দ্র। টরন্টো শহরের মধ্যে রয়েছে অনেক সুন্দর জায়গা, আপনি যদি কানাডায় কখোনো যাত্রা করতে চান তাহলে এখানে অনায়েসে আসতে পারেন।

টরন্টো শহরের সবচেয়ে জনপ্রিয় আকর্ষণগুলো হলো হিল টাওয়ার এবং কনাডারা স্পেস প্লেস। টাওয়ার হিল এবং টোয়ার বিখ্যাত হয় এখানকার সুন্দর সুন্দর জায়গা ‍গুলোর জন্য । এটি হলো কানাডার সবচেয়ে জনপ্রিয় বিনোদন স্থান । প্রায় সময়ই এখানে পর্যটকদের ভীড় জমে থাকে । কনাডারা স্পেস প্লেস হলো কানাডার প্রস্তুতি এবং স্পেস প্রযুক্তির উন্নয়নে প্রযুক্তির সংগ্রহশালা। এখানে আপনি উল্লেখযোগ্য কিছু বিজ্ঞান প্রদর্শনী ও কানাডার দর্শনীয় স্থান দেখতে পারবেন। এছাড়া টরন্টোতে আরও অনেক সুন্দর জায়গা রয়েছে।
তার মধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য স্থানগুলোর নাম হলো-

  • রোয়াল মিউজিয়াম
  • স্টাডিও টুর
  • ডিস্টিলারি ডিসট্রিক্ট
  • ক্যাসল লোমন্ড পার্ক


নিয়াগারা ফলসঃ

কানাডার দর্শনীয় স্থান

নিয়াগারা ফলস কানাডার দর্শনীয় স্থান ‍অন্যতম একটি জায়গা। এটি কানাডার ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত অবস্থিত। নিয়াগারা ফলস নদীর জলপ্রপাত বা ঝরনার মাধ্যমে একটি অসাধারণ দৃশ্য সৃষ্টি করে থাকে। যা পর্যটকদের ভীষণভাবে নাড়া দিয়ে থাকে। এটি বিশ্বব্যাপী খ্রীষ্টান পরিবারদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে পরিচিত। এবং এটি দর্শনীয় স্থানগুলির মধ্যে অন্যতম বলে বিবেচিত হয়েছে। নিয়াগারা ফলসকানাডার দর্শনীয় স্থান হিসেবে ভীষণভাবে পরিচিত লাভ করেছে এবং এখানে বছরের মধ্যে অনেকেই ভ্রমণ করে থাকেন।

আমাদের শেষ কথা-

আশা করি আমরা আপনাদের কানাডার দর্শনীয় স্থান গুলি সর্ম্পকে বুঝাতে সক্ষম হয়েছি। আজকের আর্টিকেল টি যদি আপনাদের ভাল লেগে থাকে, তাহলে অব্যশই একটি কমেন্ট করে যাবেন। এবং কানাডার দর্শনীয় স্থান সর্ম্পকে যদি আরো ও জানতে হলে আমাদের ফলো করতে পারেন। ধন্যবাদ

1 thought on “১০ টি বেস্ট কানাডার দর্শনীয় স্থান ও পর্যটন এলাকা”

Comments are closed.

Scroll to Top